মক্কা নগরীর হারাম শরিফে অনুষ্ঠিত জাঁকজমকপূর্ণ আন্তর্জাতিক হিফজুল কোরআন প্রতিযোগিতায় সবাইকে ছাড়িয়ে প্রথম হয়েছেন বাংলাদেশের হাফেজ নাজমুস সাকিব।

সারা পৃথিবীর ৭০টি দেশের প্রতিযোগীরা ওই প্রতিযোগিতায় অংশ নিয়েছিলেন।

প্রতিযোগিতায় চ্যাম্পিয়ন হয়ে কাবা শরীফের ইমাম আবদুর রহমান আস-সুদাইসের কাছ থেকে পুরস্কার স্বরূপ হাফেজ নাজমুস সাকিব ৮০ হাজার সৌদি রিয়াল ও বিশেষ সম্মননা পদক এবং একটি সার্টিফিকেট গ্রহণ করেছেন।

শুধু এই একটি প্রতিযোগিতায়ই নয়, জাতীয় ও আরো বেশ কিছু আন্তর্জাতিক কোরআন প্রতিযোগিতায় বিভিন্ন পুরস্কার অর্জন করেছেন হাফেজ সাকিব।

 

সাকিব ময়মনসিংহ জেলার ফুলবাড়িয়া থানার ইতাইল গ্রামে ২০০১ সালে জন্মগ্রহন করেন। মাত্র ১৭ বছর বয়সে সাকিব এখন একজন আন্তর্জাতিক ব্যক্তিত্ব।

তিনি মাত্র ২ বছরে পবিত্র কুরআনের ৩০ পারা মুখস্থ করতে সক্ষম হন। বর্তমানে সাকিব তাহফিজুল কুরআন আস-সুন্নাহ মাদরাসায় অধ্যায়নরত আছেন।

বাংলাদেশের গর্ব হাফেজ সাকিব এর আগে জাতীয় ও আরো বেশ কিছু আন্তর্জাতিক কোরআন প্রতিযোগিতায় বিভিন্ন পুরস্কার অর্জন করেছেন। বিশ্বসেরা হাফেজে কোরআনের তালিকাতে এখন বাংলাদেশি হাফেজ নাজমুস সাকিবের নাম যুক্ত হলো।

বিশ্বের বুকে আরো একবার বাংলাদেশের গৌরবোজ্জল নাম আলোকিত হলো তার মাধ্যমে। প্রতিভাবান এই হাফেজ দেশের বেসরকারি টেলিভিশন চ্যানেল এনটিভিতে প্রচারিত পিএইচপি কোরআনের আলো প্রতিযোগিতায় সারা দেশ থেকে আগত হাফেজে কোরআনদের মাঝে প্রথম স্থান অধিকার করেছিলেন।

By admin

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *