ইসরায়েলি হায়েনাদের মোকাবেলায়,
মাত্র কয়েক টুকরো পাথ’র নিয়ে
মসজিদুল আকসা কে হায়েনাদের হাত থেকে মুক্ত রাখার জন্য ঈমানি প্রয়াস..

অতন্দ্র প্রহরীর দায়িত্ব পালনে
নিয়োজিত রয়েছে,
ফিলিস্তিনের একদল বীর সেনা “মুজাহিদ ভাইয়েরা।

আল্লাহ্ তা’য়ালা তাদের ঈমানী শক্তিকে
আরও শক্তিশালী করুন
(আমিন)

 

আরও সংবাদ

জেরুজালেমে হামলার জন্য ইসরাইলকে মূল্য দিতে হবে: হামাস

জেরুজালেমে পবিত্র মসজিদ আল-আকসা ও এর আশপাশের এলাকায় ফিলিস্তিনি মুসল্লিদের ওপর বর্বরোচিত হামলার জন্য ইসরাইলকে মূল্য দিতে হবে বলে হুশিয়ার করেছে ইসলামি প্রতিরোধ আন্দোলন- হামাস।

হামাসের জ্যেষ্ঠ নেতা মুসা আবু মার্জুক শনিবার এক বিবৃতিতে ওই হুশিয়ারি দেন। খবর ইয়েনিসাফাকের।

আল-আকসায় নামাজ পড়তে যাওয়া মুসল্লিদের ওপর গত শুক্র ও শনিবার টানা দুদিন ধরে হামলা চালায় ইহুদিবাদীরা।এতে তিন শতাধিক ফিলিস্তিনি আহত হন।

বিবৃতিতে তিনি পবিত্র জেরুজালেমে ইহুদিদের হামলার ঘটনায় আরব ও মুসলিম দেশগুলোর নীরবতাকে ধিক্কার জানান।

হামাস নেতা মুসা আবু মার্জুক আরও বলেন, আমাদের এ নীরবতার সুযোগ নিয়ে দখলদার ইহুদিবাদীরা গোটা ফিলিস্তিনি গিলে খাচ্ছেন। একের পর এক ফিলিস্তিনি ভূখণ্ড দখল করছেন। প্রতিবাদ করলেই গুলি চালাচ্ছেন নির্বিচারে।

তুরস্ক ও ইরানসহ কয়েকটি মুসলিম দেশ এ বর্বর হামলার জন্য ইসরাইলের তীব্র নিন্দা জানিয়েছে।

ইসরাইলি একটি আদালত সম্প্রতি পূর্ব জেরুজালেমের বাসিন্দাদের বাড়ি খালি করার আদেশ দিলে বিক্ষোভে ফেটে পড়েন নেখানকার বাসিন্দারা।

অবৈধ ইহুদি বসতি নির্মাণের জন্য এখন পূর্ব জেরুজালেম পর্যন্ত দখলদারিত্ব কায়েম করতে ইসরাইল। ১৯৬৭ সাল থেকে এ জবরদখলে ধারা অব্যাহত রেখেছে মধ্যপ্রাচ্যের বিষফোঁড়াখ্যাত ইহুদিবাদী এ দেশটি।

আরও সংবাদ

পৃথিবীতে আছড়ে পড়লো চীনা রকেটের ধ্বংসাবশেষ

চীনা লং মার্চ-৫বি রকেটের অংশ ভারত মহাসাগরে আছড়ে পড়েছে বলে দাবি করেছে চীন। দেশটির রাষ্ট্রয়াত্ব গণমাধ্যমের বরাতে রয়টার্স জানিয়ে রবিবার চীনের সময় সকাল ১০টা ২৪ মিনিট (বাংলাদেশের সময় ৮টা ২৪ মিনিটে) ভারত ও শ্রীলঙ্কান দক্ষিণ-পশ্চিম অঞ্চলে ভেঙে পড়ে।

প্রাথমিকভাবে ধারণা করা হচ্ছিল নিউজিল্যান্ডের নর্থ আইল্যান্ডে পড়তে পারে রকেটটি। গেলো মাসেই চীনের নতুন মহাকাশ স্টেশনের প্রথম মডিউলটি নিয়ে কক্ষপথে রওনা দেয় লং মার্চ-৫বি নামে রকেটটি।

তিয়ানহে মডিউল চীনের নির্মাণাধীন স্থায়ী মহাকাশ স্টেশনের খুবই গুরুত্বপূর্ণ অংশ। স্টেশনটির তিন ক্রুর বসবাসের কোয়ার্টার এই মডিউলটিতে করেই নিয়ে যাওয়া হয়েছিল।

বায়ুমণ্ডলে নিয়ন্ত্রণহীনভাবে ঘুরপাক খেতে থাকা সবচেয়ে বড় বস্তু এই ধ্বংসাবশেষ।

এর আগে চীন জানায়, এতে ক্ষয়ক্ষতির ঝুঁকি একেবারেই কম। তবে যুক্তরাষ্ট্র বলেছিলো, এটি কোনো জনবহুল এলাকায় এসেও পড়তে পারে।