ফিলিস্তিনের ইসলামী প্রতিরোধ আন্দোলন হামাসের সামরিক শাখা ইয্যাদ্দিন আল কাসসাম ব্রিগেড জানিয়েছে, ইসরাইলের বিরুদ্ধে ৬ মাস যুদ্ধের চালিয়ে যাওয়ার মতো ক্ষেপণাস্ত্র মজুদ রয়েছে।

এর আগে হামাসের রকেট হামলায় এক ইসরাইলি নিহত হবার কয়েক মিনিট পর এ ঘোষণা দেয়া হয়।

এ বিষয়ে কাসসাম ব্রিগেডের মুখপাত্র আবু ওবায়দা বলেন, আল্লাহ সাহায্যে আমরা ইসরাইলের বিরুদ্ধে ৬ মাস যুদ্ধের চালিয়ে যাওয়ার মতো ক্ষেপণাস্ত্র মজুদ রেখেছি। গাজার আবাসিক ভবনে নির্বিচার বোমা হামলা চালিয়ে ফিলিস্তিনি নাগরিকদের হত্যার প্রতিশোধ হিসেবে ইসরাইলের জন্য শিগগিরই বড় ধরণের পরিণতি অপেক্ষা করছে।

প্রসঙ্গত, হামাসের ছোড়া রকেট ইসরাইলের রাজধানী তেলআবিবের রামাত গান এলাকার একটি ভবনে আঘাত হানলে ৫০ বছর বয়সী এক ইসরাইলি নাগরিক নিহত ও কয়েকজন আহত হন। এ ছাড়া তেলআবিবের কাছে আরব টাউন, রিশন লিজন এলাকায়ও রকেট বিস্ফোরিত হয়।

এসময় ইসরাইলের পক্ষ থেকে রকেট হামলার ছবি টুইট করে জানানো হয়, তেলআবিব মেট্রোপলিটন এলকায় রকেট হামলা চালানো হয়েছে। এটি মধ্য ইসরাইলের রামাত গান আবাসিক এলাকায় বিস্ফোরিত হয়েছে।

এ বিষয়ে ওয়াশিংটন পোস্টের খবরে বলা হয়, গত সোমবার থেকে গাজায় আগ্রাসনের প্রতিশোধ হিসেবে ইসরাইলের রাজধানী তেলআবিবসহ বিভিন্ন এলাকায় দুই হাজারের বেশি রকেট ছুড়েছে ফিলিস্তিনিরা।

এ খবরে আরো বলা হয়, এ কয়দিন গাজা থেকে যেসব রকেট ছোঁড়া হয়েছে, তাতে পরিচিত প্রযুক্তিই ব্যবহার করা হয়েছে। ২০১৪ সালে ইসরায়েল ও হামাসের মধ্যে সংঘর্ষের সময়ও একই ধরনের রকেট ছোঁড়া হয়েছিল। তবে এবার রকেট ছোঁড়ার ধরন পাল্টেছে তারা।

এদিকে উজি রুবিন নামের একজন ইসরায়েলি প্রতিরক্ষা ইঞ্জিনিয়ার বলছেন, আমি যতটুকু বুঝতে পেরেছি ফিলিস্তিনি আগের প্রযুক্তিই ব্যবহার করছে। তবে এবারের রকেটগুলোর আকার ২০১৪ সালের চেয়ে ভিন্ন।

এসব রকেটে ভারী ওয়ারহেড রয়েছে বলেও জানিয়েছেন ইসরায়েলের মিসাইল ডিফেন্স অর্গানাইজেশনের সাবেক প্রধান।

By admin

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *