ইসরায়েলি বিমান হামলায় তার বাড়ি এখন ধ্বংসস্তূপে পরিণত হয়েছে। চোখের সামনে বোমাবর্ষণে পরিজন-প্রতিবেশীর মৃত্যু দেখছে বছর দশেকের মেয়েটি।

এই ‘যুদ্ধ’ থামানোর ক্ষমতা তার নেই। ধ্বংসস্তূপের দিকে দৃষ্টি আকর্ষণ করিয়ে অসহায় কান্নায় ভেঙে পড়ে গাজার নাদিন-আবদেল-তাইফ বলছে, “কী করব আমি? আমার কী ক্ষমতা আছে? আমার বয়স মাত্র ১০ বছর…।


নাদিনের ওই কান্নার ভিডিও নেট মাধ্যমে এখন ভাইরাল।

রবিবার সকাল পর্যন্ত গাজায় ইসরায়েলি বিমান হানায় প্রায় ১৯২ জনের মৃত্যু হয়েছে। তার মধ্যে ৫৮ জনই শিশু। এছাড়াও নারী রয়েছে ৩৪ জন।

ভিডিও-তে সংবাদমাধ্যম ‘মিডিল ইস্ট আই’-কে ছোট্ট নাদিন কাঁদতে কাঁদতে বলছে, ‘‘কী করব আমি, বলুন? ওই ধ্বংসস্তূপ সরাবো? আমার সত্যিই ভয় করছে। আমার লোকদের জন্য আমি সব কিছু করতে পারি। কিন্তু কী করা উচিত এখন, সেটাই তো বুঝতে পারছি না। আমি বড় হয়ে ডাক্তার হতে চাই যাতে মানুষকে সাহায্য করতে পারি।

কিন্তু কিছুই করে উঠতে পারছি না। ”
তাকে আরও বলতে শোনা যায়, “আমি যখনই এসব দেখি, আমার কান্না পায়। শুধু ভাবি, কেন আমাদের ওপরই হামলা হচ্ছে? বাড়ির লোকেরা বলে, আমরা মুসলিম বলে ওরা আমাদের ঘৃণা করে। এখানে এত শিশু থাকে। কেন শিশুদের ওপর বোমাবর্ষণ করছে ওরা?”

বিডি প্রতিদিন

By admin

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *